Menu
Menu

শ্রীকৃষ্ণকীর্তন কাব্যে রাধা চরিত্র

এখন আলোচিত হবে শ্রীকৃষ্ণকীর্তন কাব্যে রাধা চরিত্র বড়ুচণ্ডীদাসের ‘শ্রীকৃষ্ণকীর্তন’ কাব্যটির মধ্যমণি হলো রাধা চরিত্র। কবি শ্রীকৃষ্ণের মাহাত্ম্য কীর্তনের উদ্দেশ্যে হয়তো কাব্য রচনা করেছিলেন। কারণ কাব্যের নাম হিসেবে আমরা ‘শ্রীকৃষ্ণসন্দর্বঃ’ (শ্রীকৃষ্ণসন্দর্ভ) লেখা চিরকুটটির কথা স্মরণ করতে পারি। তথাপি এ কাব্যের সকল গৌরব আত্মসাৎ করেছে রাধা চরিত্রটি। মনস্তত্ত্ব সম্মত উপায়ে রাধা চরিত্রটি বিকশিত হয়ে উঠেছে কবির সুনিপুণ …

বৈষ্ণব পদাবলির মূল পদ আলোচনা

বৈষ্ণব পদাবলী

ব্যাখ্যা / আলোচনা গৌরাঙ্গবিষয়ক / গৌরচন্দ্রিকা [১] নীরদ নয়নে নীরঘন সিঞ্চনে   বাল্যলীলা [১] দাঁড়াইয়া নন্দের আগে গোপাল কান্দে অনুরাগে  [২] শ্রীদাম সুদাম দাম শুন ওরে বলরাম পূর্বরাগ  [১] সই কেবা শুনাইল শ্যামনাম [২] ঘরের বাহিরে দন্ডে শতবার [৩] রূপ লাগি আঁখি ঝুরে গুনে মন ভোর [৪] আলো মুঞি জানো না অনুরাগ [১] সখি কি পুছসি অনুভব মোয় আপেক্ষানুরাগ [১] কি মোহিনী জান বঁধু …

মাধব কি কহব দৈব বিপাক

বৈষ্ণব পদাবলী

গোবিন্দদাস | অভিসার মাধব কি কহব দৈব বিপাক পথ আগমন কথা  কত না কহিব হে। যদি হয় মুখ লাখে লাখ।। মন্দির তেজি যব  পদ চারি আঅলুঁ নিশি হেরি কম্পিত অঙ্গ তিমির দুরন্ত পথ   হেরই না পারিয়ে পদযুগে বেড়ল ভুজঙ্গ।। একে কুলকামিনী    তাহে বহুযামিনী ঘোর গহন অতি দূর। আর তাহে জলধর   বরিখয়ে ঝরঝর হাম যাওব …

সখি কি পুছসি অনুভব মোয়

বৈষ্ণব পদাবলী

কবিবল্লভ। অনুরাগ সখি কি পুছসি অনুভব মোয় সোই পিরীতি  অনুরাগ বাখানিতে তিলে তিলে নূতন হোয়।। জনম অবধি হাম   রূপ নেহারুলুঁ নয়ন না তিরপিত ভেল।লাখ লাখ যুগ   হিয়ে হিয়ে রাখলুঁ  তবু হিয়ে জুড়ন না গেল।।সোই মধুর বোল   শ্রবণহি শুনলুঁ  শ্রুতি পথে পরশ ন গেল। কত মধু যামিনী   রভসে গোড়ায়ঁলুনা বুঝলুঁ কৈছ’ন কেল।। কত বিদগধ জন   রসে …

কণ্টক গাড়ি কমল সম পদতল

বৈষ্ণব পদাবলী

গোবিন্দদাস । অভিসার  কণ্টক গাড়ি কমল সম পদতল মঞ্জীর চীরহি ঝাঁপি। গাগরি বারি ঢারি করি পীছল চলতহি অঙ্গুলি চাপি।।মাধব তুয়া অভিসারক লাগি।দূতর পন্থ গমন ধনি সাধয়ে মন্দিরে যামিনি জাগি।।কর যুগে নয়ন  মুদি চলু ভামিনী তিমির পয়ানক আশে। কর কঙ্কণ-পণ  ফণিমুখ বন্ধনশিখই ভুজগ গুরু পাশে।। গুরুজন বচন বধির সম মানইআন শুনই কহ আন।পরিজন বচনে মুগধী সম হাসই গােবিন্দদাস পরমান।। আলােচনা : গােবিন্দদাস …

অঙ্কুর তপন তাপে যদি জারব

বৈষ্ণব পদাবলী

বিদ্যাপতি ।  মাথুর অঙ্কুর তপন তাপে যদি জারবকি করব বারিদ মেহে।এ নব যৌবন বিরহে গােঙায়ব কি করব সাে পিয়া লেহে।।হরি হরি কো ইহ দেব দুরাশা। সিন্ধু নিকটে যদি কণ্ঠ শুকায়বকো দূর করব পিয়াসা।চন্দন তরু সব সৌরভ ছােড়বশশধর বরিখব আগি।চিন্তামণি সব নিজগুণ ছােড়বকি মাের করম অভাগি।।শ্রাবণ মাহ ঘন কিন্তু না বরিখবসুরতরু ঝাঁঝকি ছন্দে।গিরিধর সেবি কাম নাহি পাওয়াববিদ্যাপতি রহু …

এ সখি হামারি দুঃখের নাহি ওর

বৈষ্ণব পদাবলী

বিদ্যাপতি ।  মাথুর এ সখি হামারি দুঃখের নাহি ওর।এ ভরা বাদর মাহ ভাদরশূন্য মন্দির মাের ।।ঝম্পি ঘন গর- জন্তি সস্তুতিভুবন ভরি বরিখন্তিয়া।।কান্ত পাহুন  কাম দারুণসখনে খর শর হন্তিয়া।।কুলিশ কত শত পাত মােদিতময়ূর নাচত মাতিয়া।মত্ত দাদুরী ডাকে ডাহুকীকাটি যাওয়ত ছাতিয়া।।তিমির দিগভরি  ঘোর যামিনীঅথির বিজুরিক পাঁতিয়া।বিদ্যাপতি কহ  কৈছে গােঙায়বিহরি বিনে দিন রাতিয়া।। আলােচনা :  বিদ্যাপতি রচিত পদটি …

কুল মরিয়াদ কপাট উদঘাঁটলু

বৈষ্ণব পদাবলী

গোবিন্দদাস । অভিসার কুল মরিয়াদ কপাট উদঘাঁটলু তাহে কি কাঠলি বাধা।  নিজ মরিযাদ সিন্ধু সঞে পঙারলুঁ  তাহে কি তটিনী অগাধা।।  সজনি মঝু পরিখন কার দূর।  কৈছে হৃদয় করি পন্থ হেরত হরি  সােঙরি সােঙরি মন ঝুর।।  কোটি কুসুমশর বরিয়ে যছু পর  তাহে কি জলদজল লাগি। প্রেমদহন দহ যাক হৃদয় সহ তাহে কি বজরক আগি।। যছু পদতলে নিজ  জীবন সােঁপলু  তাহে তনু …

মন্দির বাহির কঠিন কপাট

বৈষ্ণব পদাবলী

গোবিন্দদাস । অভিসার মন্দির বাহির কঠিন কপাট। চলইতে শঙ্কিল পঙ্কিল বাট ।। তহিঁ অতি দুরতর বাদর দোল। বারি কি বারই নীল নিচোল ।। সুন্দরি কৈছে করবি অভিসার। হরি রহ মানস-সুরধুনী-পার।। ঘন ঘন ঝন ঝন বজর-নিপাত। শুনাইতে শ্রবণে মরম মরি যাত।। দশ দিশ দামিনী দহন বিথার। হেরইতে উচকই লােচন-তার ৷৷ ইথে যদি সুন্দরি তেজবি গেহ। প্রেমক লাগি উপেখরি দেহ।। গােবিন্দদাস কহ ইথে কি বিচার। ছুটল বাণ কিয়ে যতনে নিবার। …

সই কেবা শুনাইল শ্যামনাম

বৈষ্ণব পদাবলী

চণ্ডীদাস । পূর্বরাগ সই, কেবা শুনাইল শ্যামনাম।কানের ভিতর দিয়া  মরমে পশিল গাে আকুল করিল মাের প্রাণ।। না জানি কতেক মধু  শ্যাম নামে আছে গো বদন ছাড়িতে নাহি পারে।জপিতে জপিতে নাম  অবশ করিল গােকেমনে পাইব সই তারে।।নাম পর তাপে যার   ঐছন করিল গোঅঙ্গের পরশে কিবা হয়।যেখানে বসতি তার   নয়নে দেখিয়া গােযুবতী ধরম কৈছে রয়।।পাসরিতে করি মন   পাসরা না যায় …

error: Content is protected !!